ইউরোপবিশ্ব

সীমানা ইস্যুতে তুরস্ক ও গ্রীসের মধ্যে সামরিক উত্তেজনা।

সামরিক আগ্রাসনের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ নিয়ে আবারও মুখোমুখি গ্রিস তুরস্ক। এথেন্সের হঁশিয়ারী সার্বভৌমত্ব ইস্যুতে কোনো ছাড় দেয়া হবে না। তুরস্কের আগ্রাসন ঠেকাতে ফ্রান্সসহ ইউরোপের অন্যান্য দেশের সহায়তাও চেয়েছেন গ্রিক প্রধানমন্ত্রী। এদিকে, পাল্টা হুমকি দিয়েছে আঙ্কারাও। তুর্কি জাহাজে গ্রিক নৌবাহিনীর গুলির ঘটনাকে আগ্রাসন আখ্যা দিয়েছেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এদিকে, তুরস্কের সাথে টানাপোড়েনের জেরে সামরিক শক্তিমত্তা বাড়াচ্ছে গ্রিস। তারই অংশ হিসেবে অত্যাধুনিক ৮৩টি এফ-সিক্সটিন যুদ্ধবিমানের মধ্য দুটি হাতে পেলো দেশটি। মূলত যুদ্ধবিমানের বহরকে শক্তিশালী করতেই গ্রিক সরকার গ্রহণ করে দেড়শো বিলিয়ন ডলারের প্রকল্প। সে অনুসারে, নিজস্ব এরোস্পেস কোম্পানি- হেলেনিক’কে দেয়া হয় দায়িত্ব। তাদের সহযোগিতা করছে মার্কিন প্রতিষ্ঠান- লকহিড মার্টিন। আগামী ছয় বছরের মধ্যে অত্যাধুনিক ইলেকট্রনিকস, রাডার এবং অস্ত্রবহনে সক্ষম বাকি ৮১টি বিমান সরবরাহ করবে তারা।

সম্পর্কিত নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button