যুক্তরাষ্ট্র

পরীক্ষাগারে তৈরি রক্ত প্রথমবারের মতো মানবশরীরে পরীক্ষা

পরীক্ষাগারে তৈরি রক্ত প্রথমবারের মতো মানবশরীরে পরীক্ষা করে দেখেছেন যুক্তরাজ্যের গবেষকেরা। তাঁরা বলছেন, রক্তের নানা সমস্যা সমাধানে তাঁদের এই গবেষণা কাজে লাগবে। এ ছাড়া বিরল রক্তের গ্রুপসহ বিভিন্ন চিকিৎসায় পরীক্ষাগারে তৈরি রক্ত ব্যবহার করা যাবে। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাজ্যের দুজন রোগীকে পরীক্ষামূলকভাবে অল্প পরিমাণে রক্ত দিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে। কয়েক চামচের সমান রক্ত দিয়ে তা মানুষের শরীরে কেমন কাজ করে, তা দেখার উদ্দেশ্যে তাঁরা এ গবেষণা করেন। এরপর তাঁরা ১০ জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর কয়েক মাস ধরে এই পরীক্ষা চালাবেন। মানুষের শরীর থেকে রক্ত নিয়ে রোগীর শরীরে দেওয়া হলে যে কাজ করে, সে তুলনায় পরীক্ষাগারে তৈরি এ রক্তের আয়ুষ্কাল কত, তা বের করার চেষ্টাও করবেন গবেষকেরা। এনএইচএস ব্লাড অ্যান্ড ট্রান্সপ্লান্ট ছাড়াও এ গবেষণায় যুক্ত ছিলেন ব্রিস্টল, কেমব্রিজ ও লন্ডনের গবেষকেরা। তাঁরা ফুসফুস থেকে অক্সিজেন নিয়ে পুরো দেহে ছড়িয়ে দিতে কাজ করা লোহিত রক্তকোষের ওপর গুরুত্ব দেন। তবে কৃত্রিম রক্ত তৈরির ক্ষেত্রে গবেষকেরা আর্থিক ও কারিগরি বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের কথা বলেছেন। তাঁদের দাবি, সাধারণ রক্তদান পদ্ধতিতে খরচের চেয়ে কৃত্রিম রক্ত তৈরির খরচ অনেক বেশি হবে। এ ছাড়া স্টেম সেল সংগ্রহের বিষয়টিও একটি চ্যালেঞ্জ। যথেষ্ট পরিমাণ স্টেম সেল না পাওয়া গেলে রক্তের পরিমাণ হবে খুব অল্প।

সম্পর্কিত নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button