যুক্তরাষ্ট্র

বিল গেটস ও মেলিন্ডার বিচ্ছেদের ঘোষণা এসেছে যৌথভাবে

শুরুতে এই বিচ্ছেদকে যতটা ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ মনে করা হচ্ছিল, বিষয়টি আসলে তেমন নয়। এ নিয়ে ফক্স নিউজ, টিএমজেডসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শীর্ষ সংবাদমাধ্যম প্রতিবেদন করেছে।

টিএমজেড জানিয়েছে, বিচ্ছেদের বিষয়ে কয়েক মাস আগেই সিদ্ধান্ত নেন বিল গেটস ও মেলিন্ডা। তাঁরা মার্চ মাসে এ-সংক্রান্ত ঘোষণা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু তা পিছিয়ে যায়।বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে টিএমজেড জানায়, বিচ্ছেদের ঘোষণার পর সংবাদমাধ্যমের দৃষ্টি এড়িয়ে চলার জন্য মেলিন্ডা একটি নির্জন ব্যক্তিগত দ্বীপ ভাড়া করেন। বিল গেটস ছাড়া সেখানে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের আমন্ত্রণ জানানো হয়।

টিএমজেডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেখানে পরিবারের সবাই মেলিন্ডার পক্ষ নেন। ধারণা করা হচ্ছে, বিল গেটস এমন কিছু করেছেন, যা নিয়ে পরিবারের সবাই তাঁর ওপর ক্ষুব্ধ হন। এ কারণে তাঁকে অবকাশ দ্বীপে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।টিএমজেডের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, বিচ্ছেদটি ‘বন্ধুত্বপূর্ণভাবে’ হয়নি। বিচ্ছেদ-সংক্রান্ত কিছু বিষয়ে উভয় পক্ষের আইনজীবীরা কোনো সমঝোতায় আসতে পারেননি। এই সমস্যাগুলো এখনো রয়ে গেছে।গেটস-মেলিন্ডার মধ্যে কোনো প্রাক-বৈবাহিক চুক্তি ছিল না। আমেরিকার আইন অনুযায়ী এ ধরনের প্রাক-চুক্তির মাধ্যমে বিচ্ছেদ-পরবর্তী সম্পদের বণ্টন নিয়ে আগাম চুক্তি করা হয়ে থাকে। সম্পদশালী লোকজন এমন প্রাক-চুক্তির মাধ্যমে সম্ভাব্য দাম্পত্য ভাঙনের পর নিজদের অর্থনৈতিক সুরক্ষার আগাম ব্যবস্থা নিয়ে থাকেন।

২৭ বছর বৈবাহিক জীবন কাটালেও বিল গেটস ও মেলিন্ডা এমন কোনো প্রাক-বৈবাহিক চুক্তি করেননি। ফলে এখন সম্পদের বণ্টনের জন্য আইনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া কাজ করবে বলে সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে।

বিচ্ছেদের আবেদন জানানোর দিনই বিল গেটসের বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ক্যাসকেড মেলিন্ডার অ্যাকাউন্টে ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার স্থানান্তর করেছে। বিশ্বের অন্যতম জনহিতকর প্রতিষ্ঠান বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন তাঁদের যৌথ উদ্যোগ। বিচ্ছেদের ঘোষণা দেওয়ার সময় বিল গেটস ও মেলিন্ডা বলেছেন, জনহিতকর প্রতিষ্ঠানটি তাঁরা যৌথভাবেই চালিয়ে যাবেন।গত সোমবার বিল গেটস ও মেলিন্ডা দীর্ঘ ২৭ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানার ঘোষণা দেন। তাঁরা টুইটারে এ-সংক্রান্ত ঘোষণা দেন। বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়ে বিল ও মেলিন্ডা বলেন, ‘আমরা একসঙ্গে দম্পতি হিসেবে থাকতে পারব, এমনটা আর বিশ্বাস করি না।বিল ও মেলিন্ডা বলেন, ‘গত ২৭ বছরে আমরা অসাধারণ তিনটি সন্তান পেয়েছি। এমন একটা ফাউন্ডেশন গড়ে তুলেছি, যে ফাউন্ডেশন বিশ্বজুড়ে মানুষকে স্বাস্থ্যকর ও সক্ষম করে গড়ে তুলতে কাজ করছে। আমরা যে বিশ্বাস থেকে ওই ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু করেছি, সেটা থাকবে। এই ফাউন্ডেশনের কাজ একসঙ্গে চালিয়ে যাব।’

বিল ও মেলিন্ডা মিলে ২০০০ সালে দাতব্য প্রতিষ্ঠান বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন গড়ে তোলেন। এই ফাউন্ডেশন বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে কাজ করছে। বিশ্বজুড়ে সংক্রামক রোগব্যাধির বিরুদ্ধে লড়াই ও শিশুদের টিকাদানে উৎসাহিত করতে কোটি কোটি ডলার ব্যয় করছে ফাউন্ডেশন।মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস বিশ্বের অন্যতম ধনী। ফোর্বস সাময়িকীর তথ্যমতে, বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় বিল গেটস চতুর্থ অবস্থানে আছেন।
বিশ্বের শীর্ষ সম্পদশালীদের এমন বিচ্ছেদের ঘটনা নিয়ে মার্কিন সমাজে তোলপাড় চলছে। অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস দুই বছর আগে তাঁর স্ত্রী ম্যকেনজির সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটান।

বিল গেটস ও মেলিন্ডার বিচ্ছেদের ঘোষণা আসার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের অনুবাদক ঝি শেলি ওয়াংকে জড়িয়ে নানা কথাবার্তা ছড়াতে থাকে। চীনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ওয়েইবো সরগরম হয়ে ওঠে। শেলি ওয়াংয়ের সঙ্গে বিল গেটসের অন্তরঙ্গতা এই দম্পতির বিচ্ছেদকে ত্বরান্বিত করেছে বলে গুজব ছড়ানো হয়। অনুবাদক শেলি ওয়াং বলেছেন, বিল গেটস ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদের জন্য তিনি কোনোভাবেই দায়ী নন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button