খেলাফুটবল

চ্যাম্পিয়নস লিগের আশা বাঁচিয়ে রাখল লিভারপুল

এবার আর দ্বিতীয় গোলটা পেতে ভুল হলো না লিভারপুলের!

৩১ মিনিটে সাদিও মানের গোলে যখন এগিয়ে গিয়েছিল লিভারপুল, দলটার সমর্থকেরা হয়তো তখনো স্বস্তি নিয়ে উদ্‌যাপন করতে পারছিলেন না। পারবেন কীভাবে! এগিয়ে গিয়েও এই মৌসুমে পয়েন্ট হারানোর ঘটনা তো এই মৌসুমে লিভারপুল কম দেখেনি!লিগে সর্বশেষ দুই ম্যাচেই এগিয়ে গিয়েও শেষ দশ মিনিটে গোল খেয়ে ড্র করেছিল ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

তবে অ্যানফিল্ডে আজ সাউদাম্পটনের বিপক্ষে সে ভুল আর করেনি লিভারপুল। মানের গোলের পর ৯০তম মিনিটে থিয়াগো আলকানতারার গোল মিলিয়ে সাউদাম্পটনকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে অলরেডরা।লিগের সেরা চারে থেকে আগামী মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নেওয়ার লড়াইয়ে লিভারপুলের জন্য এ জয় কত গুরুত্বপূর্ণ, তা হয়তো এই মুহূর্তে লিভারপুলের প্রতিটি সমর্থকের স্বস্তির নিঃশ্বাস বলে দেবে। সেরা চারের দৌড়ে লিভারপুলের প্রতিদ্বন্দ্বী লেস্টার সিটি ও টটেনহাম এই সপ্তাহে হেরেছে, ওয়েস্ট হাম খেলবে এভারটনের বিপক্ষে, তার মধ্যে লিভারপুল নিজেদের কাজটা গুছিয়ে নিয়েছে।

এ জয়ে ৩৪ ম্যাচে লিভারপুলের পয়েন্ট ৫৭, লিগের পয়েন্ট তালিকার ছয় নম্বরে আছে ক্লপের দল। চার নম্বরে থাকা লেস্টার সিটির পয়েন্ট ৩৫ ম্যাচে ৬৩। পাঁচ নম্বরে থাকা ওয়েস্ট হামের ৩৪ ম্যাচে ৫৮, আর সাত নম্বরে থাকা টটেনহামের পয়েন্ট ৩৫ ম্যাচে ৫৬।এগিয়ে গিয়েও শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে পয়েন্ট হারানো, এবার লিগে বুঝি লিভারপুলের চেনা চিত্রনাট্য হয়ে গিয়েছিল এটি। লিগে সর্বশেষ ম্যাচে নিউক্যাসলের বিপক্ষে এগিয়ে গিয়ে, আট-দশটি পরিষ্কার সুযোগ পেয়েও দ্বিতীয় গোলটি করতে পারেনি লিভারপুল, সেদিন ৯৫তম মিনিটে গোল খেয়ে ম্যাচ ড্র করেছিল ১-১ গোলে।তার আগের ম্যাচে লিডস ইউনাইটেডের মাঠেও একই গল্প, আজকের মতো ৩১ মিনিটে মানের গোলেই এগিয়ে গিয়েছিল লিভারপুল, কিন্তু ৮৭ মিনিটে গোল খেয়ে করে ১-১ ড্র। এই দুই ম্যাচে পয়েন্ট না হারালে সেরা চারের দৌড়ে লিভারপুল অনেক স্বস্তিতেই থাকত।

আজকের জয় অন্তত সে পথে কিছুটা স্বস্তি দিয়েছে। প্রথমার্ধে ম্যাচে বেশ ভালোভাবেই ছিল সাউদাম্পটন। লিভারপুলের আলিসন আর সাউদাম্পটনের ফস্টার – দুই গোলকিপারেরই বেশ ব্যস্ত সময় কেটেছে তখন। কিন্তু এর মধ্যে ৩১ মিনিটে মোহামেদ সালাহর দারুণ ক্রসে হেড করে লিভারপুলকে এগিয়ে দেন মানে। এই মৌসুমে লিগে এই প্রথম কোনো গোলে একে অন্যকে সাহায্য করলেন সালাহ-মানে, ভাবা যায়!

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য সাউদাম্পটন সেভাবে সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। তবু লিভারপুল গোল না পাওয়ায় হয়তো দলটার সমর্থকেরা উশখুশ করছিলেন। স্বস্তি পেতে তাঁদের অপেক্ষা করতে হয়েছে ৯০তম মিনিট পর্যন্ত।

সাউদাম্পটন বক্সের বাইরে কাইল ওয়াকার-পিটার্সের কাছ থেকে বল কেড়ে নেন বদলি নামা লিভারপুল স্ট্রাইকার রবার্তো ফিরমিনো। তাঁর বাড়িয়ে দেওয়া পাস ধরে বক্সের বাইরে থেকে শটেই গোল করেন থিয়াগো, লিভারপুলের জার্সিতে লিগে এটি স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের প্রথম গোল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button