এশিয়াকোভিড-১৯বিশ্ব

পাকিস্তান কোভ্যাক্সের অধীন ফাইজারের টিকার প্রথম চালান পেল

কোভ্যাক্সের মাধ্যমে ফাইজারের এক লাখ ডোজ করোনার টিকা পেয়েছে পাকিস্তান। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এই বৈশ্বিক টিকা কর্মসূচির অধীন টিকার আনুষঙ্গিক অন্যান্য সামগ্রী আজ শনিবার ও কাল রোববার পৌঁছাবে দেশটিতে। খবর ডনের।

পাকিস্তানে কোভ্যাক্সের টিকা পৌঁছানোর বিষয়টি নিশ্চিত করে টুইটারে পোস্ট দিয়েছে ইউনিসেফ। ১৮ বছরের বেশি বয়সী সবাইকে টিকা দেওয়ার যে কর্মসূচি দেশটি গ্রহণ করেছে, তারও প্রশংসা করেছে জাতিসংঘের সংস্থাটি।

ফাইজারের টিকা নিয়ে পাকিস্তান কোভ্যাক্সের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত করোনার টিকার দ্বিতীয় চালান গ্রহণ করল। প্রথম দফায় চলতি মাসের শুরুর দিকে অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১২ লাখ ৩৮ হাজার ৪০০ ডোজ টিকা গ্রহণ করে দেশটি। ওই সময় কর্মকর্তারা বলেছিলেন, সামনের দিনগুলোতে কোভ্যাক্সের আরও ১২ লাখ ৩৬ হাজার ডোজ টিকা পেতে যাচ্ছেন তাঁরা।

কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাকিস্তান মোট ১ কোটি ৭২ লাখ ডোজ টিকা পাবে বলে জানা গেছে। দেশটি এ পর্যন্ত পাঁচ ধরনের টিকা প্রয়োগের বিষয়টি অনুমোদন করেছে। এগুলো হলো সিনোফার্ম, ক্যানসিনো, সিনোভ্যাক, স্পুতনিক ও অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকা।চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে পাকিস্তান সরকার জানায়, ইসলামাবাদের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ (এনআইএইচ) চীনের এক ডোজের ক্যানসিনো টিকার উৎপাদন শুরু করেছে। সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে বলা হয়, প্রতিষ্ঠানটিতে প্রতি মাসে ৩০ লাখ ডোজ (৩ মিলিয়ন) টিকা উৎপাদন করা হবে। ফলে টিকার জন্য অন্য দেশের ওপর পাকিস্তানের নির্ভরশীলতা অনেকটাই কমে আসবে বলে আশা করছে তারা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনআইএইচের একজন কর্মকর্তা বলেন, ইতিমধ্যে ১ লাখ ২০ হাজার ডোজ ক্যানসিনো টিকা মোড়কজাত করা হয়েছে। এ টিকার কার্যকারিতা পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে। চলতি মাসের শেষ দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করা হতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button