অন্যান্য

সুন্দর পিচাইকে নিয়ে ৫ তথ্য

সুন্দর পিচাই নামটির সঙ্গে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তিনি। কঠোর পরিশ্রমেই সফলতা পাওয়া যায়—এই মন্ত্রের দৃষ্টান্ত হিসেবে তিনি দারুণ মানানসই একজন ব্যক্তি

একেবারে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ৫০ বছরের কম বয়সেই বিশ্বের সফলতম পেশাদারদের একজন হয়ে ওঠা সুন্দর পিচাইয়ের যাত্রাটি অনুপ্রেরণাদায়ক। তাঁর পুরো নাম পিচাই সুন্দরারাজন। কিন্তু তিনি সুন্দর পিচাই নামেই বেশি পরিচিতি। তিনি ভারতে মধ্যবিত্ত একটি পরিবারে বেড়ে ওঠেন। বাবা রঘুনাথ পিচাই একজন প্রকৌশলী ও মা লক্ষ্মী ছিলেন স্টেনোগ্রাফার। তামিলনাড়ুর মাদুরাইতে ১৯৭২ সালের ১০ জুন জন্মগ্রহণ করেন সুন্দর পিচাই। তাঁর জন্মদিন উপলক্ষে পাঁচটি তথ্য তুলে এনেছে ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভি। জেনে নেওয়া যাক সেই তথ্যগুলো:

একাধিক ডিগ্রির অধিকারী
সুন্দর পিচাই ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি) খড়গপুর থেকে প্রযুক্তিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন। পরে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর শেষ করেন। বিজ্ঞান বিষয়ে পড়াশোনা করার পর পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়ার্টন স্কুল থেকে এমবিএ করেন তিনি।

ভালোবাসেন ক্রিকেট ও ফুটবল
নম্রভাষী সুন্দর পিচাই তাঁর অবসর সময়ে ফুটবল ও ক্রিকেট খেলতে ভালোবাসেন। এ ছাড়া তিনি ইংরেজি ক্ল্যাসিক লেখা পড়তে পছন্দ করেন। ইন্ডিয়া টুডের তথ্য অনুযায়ী, তিনি দিল্লির এক কলেজে শিক্ষার্থীদের বলেছিলেন, ‘আমি ফুটবলের বিশাল ভক্ত। আমি ফুটবল অনুসরণ করি, কারণ তা অনুসরণ করা সহজ। আমি বার্সেলোনা ও লিওনেল মেসির ভক্ত।’

পিচাই চাকরি করেছেন অন্য প্রতিষ্ঠানেও
বিজনেস ইনসাইডার ম্যাগাজিনের তথ্য অনুযায়ী, ২০০৮ সালে গুগলের যে দলটি ক্রোম ব্রাউজার নিয়ে কাজ করছিল, সে দলের সদস্য ছিলেন পিচাই। এ সময় তিনি গুগল টুলবার, ডেস্কটপ সার্চ, গ্যাজেটস, গুগল গিয়ার অ্যান্ড গ্যাজেটসের মতো বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনসংক্রান্ত পণ্য নিয়ে কাজ করেন। ২০০৪ সালে পণ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে গুগলে যোগ দেওয়ার আগে অ্যাপ্লায়েড ম্যাটেরিয়ালস নামের একটি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানে প্রকৌশলী হিসেবেও কাজ করেন তিনি।

পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ম্যাকেনসি অ্যান্ড কোম্পানিতে কাজের অভিজ্ঞতাও রয়েছে তাঁর।

ভালোবেসে বিয়ে করেছেন

ভালোবেসে অঞ্জলিকে বিয়ে করেছেন সুন্দর পিচাই। কলেজজীবন থেকেই তাঁকে চিনতেন। অঞ্জলি রাজস্থানের কোটার একজন রাসায়নিক প্রকৌশলী। তাঁরা আইআইটি খড়গপুরের সহপাঠী ছিলেন। পিচাই-অঞ্জলি দম্পতির দুই সন্তান রয়েছে।

মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী পদে প্রতিযোগী ছিলেন

২০১৪ সালে মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী হিসেবে প্রতিযোগীদের তালিকায় ছিল সুন্দর পিচাইয়ের নাম। তবে ওই পদে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সত্য নাদেলা। পরে নাদেলাকে ওই পদে নিয়োগ দেয় মাইক্রোসফট।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button