চীন

তাইওয়ানের আকাশে ফের চীনের যুদ্ধবিমান

নন্দন নিউজ ডেস্ক: তাইওয়ানের আকাশে অনুমতি ছাড়াই প্রবেশ করেছে চীনের ১৬ টি যুদ্ধবিমান। শনিবার (৬ নভেম্বর) তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা জোনে চীনা বিমান প্রবেশ করে তাদের সীমান্তে টহল দিয়েছে বলে দাবি তাইওয়ানের। এর আগেও একাধিক বার তাইওয়ানের আকাশসীমায় এমন অনুপ্রবেশ করেছিল চীনা জঙ্গিবিমান।

রোববার (৭ নভেম্বর) তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে জানায়, চীনের ১৬টি যুদ্ধবিমান তাইওয়ানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের দ্বীপগুলোর আকাশসীমানায় টহল দিয়েছে। বিমানগুলোর মধ্যে ১০টি জি-১৬ যুদ্ধবিমান এবং ৬টি জি-১০ যুদ্ধবিমান। অতঃপর চীনা বিমানগুলোকে তাড়িয়ে দিতে নিজেদের যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছে তাইওয়ান।

এদিকে গত অক্টোবর মাসের চীনের অনুপ্রবেশের ঘটনার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাইওয়ানকে ৬৬টি এফ-১৬ জঙ্গিবিমান এবং ১০০টি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র এজিএম-১৫৮ সরবরাহ করে। এতে দ্বীপটির যুদ্ধ করার ক্ষমতা বেড়েছে কয়েকগুন। সেই সাথে চীনের বিপক্ষে হামলা চালানোর জন্য এখন প্রস্তুত তাইওয়ান। তাই নিজেদের সুরক্ষার্থে নতুন রেডিও সতর্কতা জারি করেছে তারা। এছাড়াও বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় এখনও পর্যবেক্ষণ চলছে বলে জানা গেছে।

তবে বিশ্লেষকদের মতে, চীনের নিজেদের শক্তি প্রদর্শনের জন্য এমনটা করেছে। গেল দেড় বছর ধরেই তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়ে আসছে তাদের আকাশসীমান্তে চীনা যুদ্ধবিমানের নিয়মিত টহলের বিষয়টি। চীন তাইওয়ানকে নিজের দেশের অবিচ্ছেদ্য অংশ মনে করে এবং শক্তি প্রদর্শন করে প্রায়ই তাইওয়ানবাসীকে তা মনে করিয়ে দেয়। তাই দ্বীপটির উপর পর্যায়ক্রমে সামরিক চাপ সৃষ্টি করে আসছে চীন। এমন ঘটনায় তাইওয়ানের পাশে আছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। বুধবার (৩ নভেম্বর) তাইওয়ান সফরে গিয়ে ইয়রোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি ভরসা দিয়ে আসেন। এরই সাথে চীন থেকে তাইওয়ানকে রক্ষা করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন  পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button