এশিয়াবিশ্ব

আফগানিস্তানে জুম্মার নামাজে বোমা হামলা, নিহত ৩

নন্দন নিউজ ডেস্ক: আফগানিস্তানে জুম্মার নামাজ চলাকালে সুন্নি নিয়ন্ত্রিত একটি মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে অন্তত তিনজন মুসল্লি নিহত হয়েছেন। ভয়াবহ এ বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন মসজিদে নামাজ পরিচালনা করা ইমামসহ কমপক্ষে ৩৫ জন।

শুক্রবার (১২ নভেম্বের) স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টার দিকে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় নানগারহর প্রদেশের ‘স্পিন ঘর’ জেলার একটি মসজিদে এ হামলার ঘটনা ঘটে। খবর আল-জাজিরার।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, হামলার পর স্থানীয় একজন চিকিৎসক তিনজনের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন। অন্যদিকে দেশটির ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী তালেবানের একজন মুখপাত্র বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় ৩৫ জন আহত হওয়ার তথ্য জানিয়েছেন। তবে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।তালেবানের একজন মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, জুম্মার নামাজ চলাকালে ‘স্পিন ঘর’ জেলার একটি মসজিদে হামলার ঘটনা ঘটেছে। তালেবান ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা সেখানে রয়েছেন। তবে হতাহতের ব্যাপারে এখনো স্পষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি।

নানগারহর প্রদেশের সরকারি মুখপাত্র ক্বরি হানিফ এপিকে জানিয়েছেন, ধারণা করা হচ্ছে, বিস্ফোরিত বোমাটি আগেই মসজিদে রাখা হয়েছিল। জুম্মার নামাজ শুরুর কিছুক্ষণ পরই তা বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। মসজিদে নামাজ আদায় করতে আসা অধিকাংশ মুসল্লি বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন। পুরো মসজিদ রক্তে ভেসে গেছে। ঘটনাটি নৃশংস ও হৃদয়বিদারক।

তবে এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি।

যদিও গত ১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর ইসলামিক স্টেট খোরাসান (আইএসকেপি) দেশটির খোরাসান প্রদেশে বেশ কয়েকটি রক্তক্ষয়ী হামলার ঘটনা ঘটায়। ওই সব হামলার ঘটনার পর আইএসকেপি ঘটনার দায় স্বীকার করে বিবৃতিও দেয়।

চলতি নভেম্বরের শুরুতেও কাবুলে সেনাবাহিনীর একটি হাসপাতাল হামলা চালায় আইএসকেপি। ওই হামলায় অন্তত ১৯ জন নিহত এবং ৫০ জন আহত হন। এছাড়া চলতি বছর দুটি শিয়া অধ্যুষিত মসজিদে হামলা চালায় আএসকেপি। এসব হামলায় অন্তত ১২০ জন মানুষের প্রাণহানি ঘটে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button