যুক্তরাষ্ট্র

৬৬ লাখ কর্মসংস্থান তৈরি করে বাইডেনের রেকর্ড

নন্দন নিউজ ডেস্ক: প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রথম বছরে যুক্তরাষ্ট্রের নিয়োগকর্তারা নতুন ৬৬ লাখ নতুন কর্মসংস্থান বা পদ তৈরি করেছেন। এর আগে কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্রথম বছরে এতো বেশি পদ তৈরি হয়নি। সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

জানুয়ারিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে চাকরির বাজারের এমন শক্তিশালী চিত্র ফুটে উঠে। এর আগে জিমি কার্টারের সময় প্রথম ১২ মাসে প্রায় ৪০ লাখ পদ তৈরি হয়। প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের সময় এ সংখ্যা ছিল ২৮ লাখ। অন্যদিকে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম এক বছরে চাকরিতে পদ তৈরি হয় ২০ লাখ।

বাইডেনের শপথ গ্রহণের পর ২০২১ সালে দেশটিতে চাকরি বাড়ে চার দশমিক ছয় শতাংশ। তবে কার্টারের সময় চাকরি বাড়ে চার দশমিক আট শতাংশ। ফলে শতাংশের ভিত্তিতে বাইডেন একটু পিছিয়ে আছেন। অন্যদিকে লিন্ডন জনসনের শাসনামলে তিন দশমিক চার শতাংশ পদ বাড়ে।

২০২০ সালে শুরু হওয়া করোনা মহামারির মধ্যেই ক্ষমতা গ্রহণ করেন বাইডেন। তবে অল্প সময়ের মধ্যেই অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় বাইডেন কিছুটা সুবিধা পেয়েছেন। বিশেষ করে চাকরির বাজার চাঙা করার ক্ষেত্রে।

তাছাড়া গত বছর দেশটির মোট অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল পাঁচ দশমিক সাত শতাংশ। যা ১৯৮৪ সালের পর সবচেয়ে ভালো বলে জানা গেছে। তখনকার প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগানের সময় এমন অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি দেখা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাইডেন এমন এক সময় ক্ষমতা গ্রহণ করেন যখন যুক্তরাষ্ট্রে করোনার প্রকোপ কিছুটা কমে আসে। তখন করোনা প্রতিরোধী টিকা কার্যক্রমও শুরু হয়ে যায়। অর্থনীতিও স্বাভাবিক গতিতে ফিরে আসতে শুরু করে।

তবে দেশটিতে ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে চাকরি ছাড়ার ক্ষেত্রে। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে ৪৩ লাখ আমেরিকান তাদের চাকরি ছাড়েন। যা নভেম্বরের রেকর্ড ৪৫ লাখের চেয়ে কম। অর্থাৎ শেষের দুই মাসে রেকর্ড ৮৮ লাখ মানুষ চাকরি ছাড়ে। দেশটির শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো এ তথ্য জানায়।

যুক্তরাষ্ট্রে গত বছর মোট সাত কোটি ৫৩ লাখ কর্মী নিয়োগ করা হয়। একই সময়ে চাকরি ছাড়ে প্রায় ছয় কোটি ৯০ লাখ। এদের মধ্যে প্রায় চার কোটি ৮০ লাখ স্বেচ্ছায় চাকরি ছাড়ে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button