এশিয়াবিশ্ব

চীনের জে-১০সি যুদ্ধবিমান পেল পাকিস্তান

নন্দন নিউজ ডেস্ক: চীনের তৈরি জে-১০সি যুদ্ধবিমান পেয়েছে পাকিস্তান। এসব যুদ্ধবিমান বহুমুখী কাজে ব্যবহার করা যায়। গতকাল শুক্রবার পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের আটক জেলায় মানহাস কামরা বিমানঘাঁটিতে দেশটির বিমানবাহিনীর কাছে এসব যুদ্ধবিমান হস্তান্তর করে চীন। এ সময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি ফ্রান্সের কাছ থেকে রাফায়েল যুদ্ধবিমান কিনেছে ভারত। এরপর পাকিস্তান নিজেদের যুদ্ধবিমানের বহর শক্তিশালী করার চেষ্টা চালাতে থাকে। তারই অংশ হিসেবে চীনের কাছ থেকে জে-১০সি মডেলের ২৫টি যুদ্ধবিমান কেনার কথা গত জানুয়ারিতে জানায় ইসলামাবাদ। অবশেষে চীনের সেসব যুদ্ধবিমান পাকিস্তানে এসে পৌঁছেছে।

পাকিস্তান বিমানবাহিনীর বহরে আনুষ্ঠানিকভাবে চীনা যুদ্ধবিমান যুক্ত করার অনুষ্ঠানে ফ্রান্স থেকে ভারতের রাফায়েল যুদ্ধবিমান কেনার প্রসঙ্গ টানেন ইমরান খান। তিনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত এ অঞ্চলে ভারসাম্যহীনতা তৈরির চেষ্টা চলছে। এটা মোকাবিলায় আমাদের প্রতিরক্ষাব্যবস্থায় আজ একটি বড় সংযোজন করা হলো।’

প্রায় চার দশক আগে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান পাওয়ার পর চীনের যুদ্ধবিমান পাওয়াকে পাকিস্তানের জন্য বড় অর্জন হিসেবে বর্ণনা করেন ইমরান খান। সাধারণত আধুনিক এই যুদ্ধবিমান পাওয়ার জন্য বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হলেও যুদ্ধবিমান কেনার জন্য যোগাযোগের মাত্র আট মাসের মাথায় এসব যুদ্ধবিমান দেওয়ায় চীনকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তানের বিপক্ষে যেকোনো আগ্রাসনে মদদ দেওয়ার আগে যেকোনো দেশকে দুবার ভাবতে হবে। পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনী আধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত ও যেকোনো হুমকি মোকাবিলায় সদাপ্রস্তুত বলে দাবি করেন তিনি। ইমরান খান এসব বলে মূলত ভারতকে সতর্ক করেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চীনের জে-১০সি মডেলের এই যুদ্ধবিমান সব ধরনের আবহাওয়ায়, বিশেষত রাতে, অভিযানের উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে। চীনের প্রতিরক্ষা বাহিনীর বহরে থাকা যুদ্ধবিমানের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আস্থা রাখার মতো একটি হলো জে-১০সি মডেলের এই যুদ্ধবিমান। চতুর্থ প্রজন্মের এই যুদ্ধবিমানের আকার মাঝারি ধরনের।

২৩ মার্চ পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা দিবসের বার্ষিক প্যারেডে এসব যুদ্ধবিমান প্রদর্শিত হবে বলে জানান দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রশিদ আহমেদ।

সম্পর্কিত নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button