ইউরোপবিশ্বযুক্তরাষ্ট্র

ইউরোপে মার্কিন ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্রের চাহিদা বাড়ছে

নন্দন নিউজ ডেস্ক: ইউক্রেনে রুশ রাহিনীর হামলার কারণে ইউরোপে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্রসহ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার চাহিদা বাড়ছে।

বৃহস্পতিবার বার্তাসংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নিজেদের নিরাপত্তা শক্তিশালী করতে ইউরোপের সরকার ও প্রতিরক্ষা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো ইতোমধ্যে মার্কিন সরকারের সঙ্গে দেনদরবার শুরু করছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, জার্মানি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র মোকাবিলায় মার্কিন প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনতে আগ্রহী। তবে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

পোল্যান্ডের এক সরকারি কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে  বলেন, তার দেশ জরুরিভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে অত্যাধুনিক ‘রিপার ড্রোন’ কিনতে চায়।

এ ছাড়া, পূর্ব ইউরোপের কয়েকটি দেশ সম্ভাব্য রুশ হামলা থেকে নিজেদের রক্ষা করতে মার্কিন অস্ত্র কেনার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এসব অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে বিমানবিধ্বংসী ‘স্টিংগার’ ও ট্যাংকবিধ্বংসী ‘জ্যাভেলিন’ ক্ষেপণাস্ত্র।

ইউরোপের দেশগুলো প্রতিরক্ষা বাজেট বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে উল্লেখ করে প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বিশেষ করে, সুইডেন ও ডেনমার্ক তাদের প্রতিরক্ষা ব্যয় ব্যাপকহারে বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

পেন্টাগনের সহকারী প্রতিরক্ষাসচিব ম্যারা ক্যারলিন মার্কিন কংগ্রেসকে বলেন, ‘ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের কারণে ইউরোপের ভৌগলিক অখণ্ডতা হুমকির মুখে পড়েছে।’

সূত্র জানিয়েছে, মার্কিন সরকারের অনুমতি পেতে ইউরোপিয়ান ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট টিম ও পেন্টাগনের ডিফেন্স সিকিউরিটি কোঅপারেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মধ্যে প্রতি সপ্তাহে বৈঠক হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এক শীর্ষ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানান, ‘অস্ত্র সরবরাহের বাধাগুলো দূর করতে ও অস্ত্রের উৎপাদন বাড়াতে পেন্টাগন কাজ করছে।’

সম্পর্কিত নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button