কানাডাকোভিড-১৯যুক্তরাষ্ট্র

আবারও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডায়

নন্দন নিউজ ডেস্ক: আরও একবার যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। টানা দুই মাস কমে আসার পর দেশটির বেশিরভাগ অঙ্গরাজ্যে জাতীয়ভাবে বাড়তে শুরু করেছে করোনা রোগী। এর ফলে আরেকটি কোভিড-১৯ ঢেউয়ের বিস্তারের আশঙ্কা বাড়ছে। মার্কিন বার্তা সংস্থা এপি এখবর জানিয়েছে।

জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগৃহীত তথ্য অনুসারে, ওমিক্রনের সংক্রমণ চূড়ার পৌঁছার পর দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে যায়। ১৪ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রে সাত দিনের দৈনিক নতুন আক্রান্তের সংখ্যার গড় বেড়ে হয়েছে ৩৯ হাজার ৫২১ জন। দুই সপ্তাহ আগের তুলনায় ৩০ হাজার ৭২৪ জন বেশি।

জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. স্টুয়ার্ট ক্যাম্পবেল রয় বলেন, আমরা জানি না এই সংক্রমণ কত বেশি হবে।

এপি’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উচ্চ সংক্রমণশীল ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের মতো সংক্রমণ চূড়ায় উঠবে বলে ধারণা করছে না। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলছেন, আসন্ন ঢেউয়ের প্রধান কারণ বিএ.২ মিউট্যান্ট ৩০ শতাংশ বেশি সংক্রামক হতে পারে। আগামী কয়েক সপ্তাহ দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং হাসপাতালগুলো অতিরিক্ত রোগীর কারণে চাপে পড়বে। যা দেখা যাবে তার চেয়ে সংক্রমণ ঢেউয়ের বিস্তৃতি বেশি হবে। কারণ সরকার ঘোষিত আক্রান্তের সংখ্যা প্রকৃত আক্রান্তের চেয়ে অনেক কম। বিশেষ করে মানুষ বাড়িতে পরীক্ষা করার পর তা না জানানো এবং পরীক্ষা এড়িয়ে যাওয়ার কারণে প্রকৃত সংখ্যা বেশি হবে।

স্ক্রিপস রিসার্চ ট্রান্সল্যাশনাল ইন্সটিটিউটের ড. এরিক টোপোল জানান, আগের সংক্রমণ চূড়ার অন্তত এক-চতুর্থাংশে পৌঁছার আগ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকবে। ইসরায়েলের মতো পরিস্থিতি যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি করবে বিএ.২।

টিকাদান বা আক্রান্ত হওয়ার ফলে উচ্চ মাত্রার ইমিউনিটি অর্জনের কারণে হয়ত যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবু সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. স্টুয়ার্ট ক্যাম্পবেল রয় মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের পরিস্থিতি ইউরোপের মতো হতে পারে। তুলনামূলক মাত্রায় ইমিউনিটি থাকার পরও কিছু স্থানে বিএ.২ সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য ছিল। তার কথায়, আমাদের এখানেও এমন উল্লেখযোগ্য সংক্রমণ দেখা দিতে পারে।

সম্পর্কিত নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button